১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার,সকাল ৭:১১

খুলনা মহানগরীতে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত; আসামি দুই সহোদর গ্রেফতার

প্রকাশিত: মে ২৬, ২০২১

  • শেয়ার করুন

খুলনা মহানগরীতে মোবাইল ফোন হারানোর বিষয়কে কেন্দ্র করে ছুরিকাঘাতে রানা সরদার নামে এক যুবক নিহত। ২৪ ঘন্টার মধ্যে আসামি দুই ভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৪ মে) দিনগত রাত আড়াইটায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহত যুবক সোনাডাঙ্গা থানাধীন আলীর ক্লাব সংলগ্ন এলাকার মৃতঃ মান্নান সরদারের ছেলে।
এ ব্যাপারে সোনাডাঙ্গা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ২৪ ঘন্টার মধ্যে ২ আসামিকে গ্রফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলোঃ রাব্বি হোসেন গোলদার (২৫), আরবি গোলদার (২০)।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়,গত ২১ মে দুপুর আড়াইটার দিকে মোবাইল হারানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাব্বি হোসেন গোলদার (২৫), আরবি গোলদার (২০), আকবার গোলদার, শিরিনা বেগম (৪২) ও নজরুল ইসলাম (৫৫)সহ অজ্ঞাতনামা ৩/৪ জন পূর্ব পরিকল্পিতভাবে রানা সরদারের ওপর চড়াও হন। এ সময় রাব্বি হোসেন তার কোমরে থাকা চাকু বের করে রানা সরদারের বুকের ডান পাশে আঘাত করে। এতে রানা গুরুতর জখমপ্রাপ্ত হয়। রানার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে এসে তাকে দ্রুত খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসারত অবস্থায় রানা সোমবার (২৪ মে) রাত আড়াইটার দিকে মৃত্যুবরণ করেন। উভয় পক্ষ আত্মীয় হওয়ায় ঘটনার বিষয়ে আপোষ মিমাংসা করার জন্য এবং ভিকটিমের চিকিৎসার কাজে ব্যস্ত থাকায় তাৎক্ষণিকভাবে থানায় কোনো এজাহার দায়ের করেননি রানা পরিবার। মঙ্গলবার (২৫ মে) মৃত্যুর পর নিহত রানার মা ডলি বেগম (৫০) বাদী হয়ে চার জনকে আসামী করে সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২০। আসামিরা হলেন, রাব্বি হোসেন গোলদার (২৫), আরবি গোলদার (২০), শিরিনা বেগম (৪২) ও নজরুল ইসলাম (৫৫)। এরপর পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুই জনকে গ্রেফতার করে।
সোনাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মমতাজুল হক জানান, মামলা রুজুর ২৪ ঘন্টার মধ্যেই দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা দুই ভাই। হত্যায় জড়িত অপর আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন