আজ মঙ্গলবার, ২৬শে অক্টোবর, ২০২১ ইং, ১০ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ভোমরা বিজিবির হাতে অবৈধ ভারতীয় ঔষধসহ ইজিবাইক চালক আটক

সীমান্ত ব্যুরো, সাতক্ষীরা: গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অবৈধ পথে ভারত থেকে আসা ঔষধের চালান আটক করলো ভোমরা ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর ২০২১) সকালে ভোমরা বন্দরের লহ্মীদাঁড়ী বাজার সংলগ্ন জাহাঙ্গীর মার্কেটের সামনে থেকে ভারতীয় ঔষধের চালান পাচার করে নিয়ে যাওয়ার সময় ভোমরা বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার হারুন উর রশিদের নেতৃত্বে বিজিবি জোয়ানরা একটি ইজিবাইকসহ চালককে বিজিবি ক্যাম্পের সামনে থেকে আটক করে বিজিবি ক্যাম্পে নিয়ে যায়। এখানে ইজিবাইকটিতে তল্লাশি চালিয়ে ১ হাজার ১ শত ৭৮ পাতা টাপল ট্যাবলেট এবং ২৫ বোতল গ্রিফলস সিরাপ উদ্ধার করে। বিজিবির হাতে আটক হওয়া ইজিবাইক চালকের নাম হাবিবুর রহমান। তার বাড়ি সদর থানার আঁড়–য়াখালি গ্রামে। সে মুনসুর আলী গাজীর পুত্র। বিজিবি জোয়ানরা আটককৃত ইজিবাইকসহ সম্ভাব্য ঔষধের মূল্য ৫ লক্ষ ৯০ হাজার ৬ শত ১০ টাকা নির্ধারন করে। ওই দিন আটককৃত ইজিবাইক ও ঔষধসহ চালক হাবিবুর রহমানকে সদর থানায় সোপর্দ করে বিজিবি। এদিকে ভোমরা ক্যাম্পের সুবেদার হারুন উর রশিদ জানান, এখন থেকে সন্দেহ হলে ভারতীয় ট্রাক তল্লাশি কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এদিকে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল সীমান্তের বৈধ ও অবৈধ পথ দিয়ে ভারত থেকে পাচার হয়ে আসছে মানব ও পশু-পাখি রোগ প্রতিরোধ বিষয়ক নানা প্রকার ভেজাল ঔষধের চালান। ভোমরা সীমান্তের বিপরীতে ঘোজাডাঙ্গা স্থল সীমান্তের গোপন আস্তানা থেকে ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাকের কেবিনের মধ্যে আসছে গোপনে সংরক্ষিত থাকা বড় আকারের ঔষধের চালান। ভোমরা ও লহ্মীদাঁড়ী সীমান্তের ঔষধ চোরাচালান সিন্ডিকেটের সদস্যরা ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাক চালকদের সঙ্গে মোটা অঙ্কের চুক্তির বিনিময়ে এদেশে পাচার করে নিয়ে আসছে ভারতীয় ঔষধ। ঔষধ ভর্তি ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাক ভোমরা বন্দরের অভ্যন্তরে প্রবেশের পরপরই এদেশের চোরাচালানীরা সঙ্গোপনে ভারতের ট্রাক চালকদের নিকট থেকে ঔষধগুলো নিয়ে চলে যায়। যেটা স্থানীয় প্রশাসনের নজরের বাইরে থেকে যায়। ভোমরা বন্দর সীমান্তের একাধিক গোপন সূত্র জানান, ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তের বিভিন্ন পার্কিং ইয়ার্ড থেকে ওই দেশীয় ঔষধ চোরাচালানীরা বস্তা ভর্তি বিভিন্ন প্রকারের ঔষধ ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাকের মধ্যে তুলে দিয়ে এদেশের চোরাচালানীদের সঙ্গে মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে যোগাযোগ রাখে। ফলে সময় সুযোগ বুঝে পাচার হওয়া ঔষধের চালানগুলো স্থানীয় চোরাকারবারী সদস্যরা বিভিন্ন পরিবহনের মাধ্যমে বহন করে নিয়ে যায়। ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বিজিবি ও বিএসএফ এর চোখ এড়িয়ে সুকৌশলে ভারতীয় ট্রাকের কেবিনে বড় আকারের ঔষধ চালান পাচার হয়ে আসছে নির্বিঘেœ, এমন অভিযোগের প্রতিফলন ঘটেছে বাস্তবতায়। তবে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাঝে মধ্যে দু’একটি ঔষধের চালান ধরা পড়লেও বড় আকারের ঔষধ চালানগুলো রয়ে যায় ধরা ছোঁয়ার বাইরে। সীমান্ত সূত্র জানায়, ভোমরা ও লহ্মীদাঁড়ী সীমান্তবর্তী এলাকার লহ্মীদাঁড়ী গ্রামের শীর্ষ চোরাচালানী জাকির, আলম, অহিদ ও বিল্লাল এবং বহেরা গ্রামের আবু তালেব, গাংনিয়া গ্রামের সিদ্দিক হোসেনসহ একাধিক চোরাকারবারী ভারত থেকে বৈধ ও অবৈধ পথে লক্ষ লক্ষ টাকার অবৈধ ঔষধ পাচার করে এনে সীমান্ত এলাকার গোপন স্থানে জমা রাখে। এখান থেকে প্রশাসনের চোখ এড়িয়ে ইজিবাইক, মাহিন্দ্র, মোটরসাইকেল ও অন্যান্য পরিবহনের মাধ্যমে পাচারকৃত ঔষধের চালান সাতক্ষীরাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় পৌছে দেয়।

 

 

 

ভাল লাগলে শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

     এই বিষয়ের আরো সংবাদ

ফেসবুকে দৈনিক তথ্য