২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার,রাত ২:৪৩

ভারতীয় ও রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের সাথে নৌপ্রধানের সাক্ষাৎ

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৭, ২০২৩

  • শেয়ার করুন

ঢাকা, ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩ঃ বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী ভারতীয় এবং রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনীর (খরনবৎধঃরড়হ ডধৎ ঠবঃবৎধহং) ৩২ জন বীর যোদ্ধা আজ রবিবার (১৭-১২-২০২৩) নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল এম নাজমুল হাসান এর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

বনানীস্থ নৌ সদর দপ্তরে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে ভারতীয় দলের দলনেতা মেজর জেনারেল এমআরএস মান (গধল এবহ গজঝ গধহহ) এবং রাশিয়ান দলের দলনেতা গুবেনকো ভিটালি ভিকটোরোভিখ (এঁনবহশড় ঠরঃধষরর ঠরশঃড়ৎড়ারপয)-সহ সকল সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারত ও রাশিয়ার ডিফেন্স এ্যাটাশে, সশস্ত্র বাহিনীর কর্মকর্তা এবং নৌ সদরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সৌজন্য সাক্ষাৎকালে নৌবাহিনী প্রধান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে ভারত এবং রাশিয়া তথা তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের বলিষ্ঠ ভূমিকার কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স¥রণ করেন। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে বাংলার জনগণ যে মুক্তির সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল সেই মহান স্বাধীনতা অর্জনে ভারত এবং রাশিয়া আমাদেরকে সহযোগিতা করেছে। বিশেষ করে ১৯৭১ সালে পরিচালিত ‘অপারেশন জ্যাকপট’কে সাফল্যমণ্ডিত করতে ভারতের ভূমিকার কথা তিনি উল্লেখ করেন।

অপরদিকে মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী চ্যানেলে মাইন অপসারণের মাধ্যমে চট্টগ্রাম বন্দরকে জাহাজ চলাচল ও বিপদমুক্ত রাখতে রাশিয়ার সহযোগিতার কথা স¥রণ করে নৌবাহিনী প্রধান কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। এর আগে সকালে ভারতীয় ও রাশিয়ার প্রতিনিধি দলটি শিখা অনির্বাণে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন এবং একাত্তরের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শাহাদাত বরণকারী সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। সফরের অংশ হিসেবে রাশিয়ার প্রতিনিধি দলটি চট্টগ্রামস্থ বাংলাদেশ নেভাল একাডেমি পরিদর্শন করেন। উল্লেখ্য, ছয়দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে আসা ভারত এবং রাশিয়ার উক্ত প্রতিনিধি দলটি আগামী ১৯ ডিসে¤¦র প্রত্যাবর্তন করবে বলে আশা করা যায়।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন