১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার,বিকাল ৪:৩৭

শিরোনাম
সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা, স্থগিত বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষাও মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে: প্রধানমন্ত্রী খুলনা মহানগরীর নতুন রাস্তা, জিরোপয়েন্ট ও শিববাড়ি মোড়ে সড়ক অবরোধ কেএমপি খুলনার অফিসার্স মেসের উদ্বোধন করেন আইজিপি খুলনায় আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত খুলনা জেলা আ’লীগের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত কয়রায় মহসিন রেজা, ডুমুরিয়ায় এজাজ ও পাইকগাছায় আনন্দ চেয়ারম্যান নির্বাচিত খুলনায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন ফেরদৌস আহম্মেদ’র প্রধানমন্ত্রী গরিব-দু:খী মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করে চলেছেন-কেসিসি মেয়র

পর্যটকদের জন্য সুন্দরবন খুলছে ১ নভেম্বর

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৭, ২০২০

  • শেয়ার করুন

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সাত মাস বন্ধ থাকার পর বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবনে পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়ার কথা রয়েছে। এ অনুমোদন হলে ১ নভেম্বর থেকেই সুন্দরবনে পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন।

বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার এমপি বলেন, ‘সুন্দরবনে পর্যটক প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন হলে ১ নভেম্বর থেকে সুন্দরবনে পর্যটকরা যেতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে ৫০ জনের বেশি পর্যটক কেউ বহন করতে পারবেন না। আর ট্যুর অপারেটরদের করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাসহ সরকারের যাবতীয় শৃঙ্খলা অনুসরণ করতে হবে।’

ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব সুন্দরবনের সভাপতি মো. মইনুল ইসলাম জমাদ্দার বলেন, ‘কুয়াকাটাসহ দেশের প্রায় সব পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেওয়া হয়েছে। সুন্দরবনে পর্যটনের সুযোগ খুলে দিলে কোনও সমস্যা হবে না। বরং সরকারের রাজস্ব আয় হবে। সুন্দরবন কেন্দ্রিক ৭০টি ট্যুর কোম্পানির অর্ধশত জাহাজের কয়েক হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রায় সাত মাস ধরে বেকার। চরম আর্থিক সংকটে রয়েছেন তারা। মাত্র তিন থেকে চার মাস সুন্দরবনের পর্যটন মৌসুম। এরপর সারা বছর বসে বসে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেই টাকায় চলতে হয়। পর্যটন মৌসুমে যদি পর্যটন বন্ধ থাকলে সুন্দরবন কেন্দ্রিক পর্যটন শিল্পে ধস নামবে।’

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে গত ১৯ মার্চ পুরো সুন্দরবনে পর্যটকদের যাতায়াত ও নৌযান চলাচল সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত পূর্ব ও পশ্চিম সুন্দরবনজুড়ে এ নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে বলে জানানো হয়। সুন্দরবনের ৯টি পর্যটন এলাকায় পর্যটন মৌসুমে (নভেম্বর থেকে মার্চে) হাজার হাজার মানুষ ঘুরতে আসেন।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন