২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার,সকাল ৬:৪২

শিরোনাম
খুলনার ৬ টি আসনে জয়ী নৌকার প্রার্থীরা বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তার লক্ষ্যে নৌবাহিনী মোতায়েন ভোটারদের হুমকি দিচ্ছে এমপি সালাম মুর্শিদীর লোকের, অভিযোগ স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভারতীয় ও রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের সাথে নৌপ্রধানের সাক্ষাৎ বীরশ্রেষ্ঠ শহিদ রুহুল আমিন ও বীর বিক্রম শহিদ মহিবুল্লাহর শাহাদত বার্ষিকী পালন রূপসা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে বীর ‍মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান নৌবাহিনীর ৬৭১ জন নবীন নাবিকের শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত আমরা একবারও বলিনি তফসিল পেছানোর কথা : ইসি আহসান হাবিব শীতকালীন রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করলেন নৌবাহিনী প্রধান

ঝিনাইদহে ট্রাকের ধাক্কায় বাস উল্টে খাদে, নিহত ১১

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২১

  • শেয়ার করুন

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার বারোবাজার পেট্রোল পাম্প এলাকায় জে.কে পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে ১১ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন বাসে থাকা প্রায় অর্ধশত যাত্রী।

এ দুর্ঘটনার পর প্রায় ২ ঘণ্টা সড়কটিতে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ঘটনাস্থলের উভয় পাশে শতশত বাস ট্রাক আটকে পড়ে।

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কের বারোবাজার পেট্রোল পাম্প এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে ৬ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে।

তারা হলেন, কালীগঞ্জ উপজেলার সুন্দরপুর গ্রামের ইসাহাক আলীর ছেলে মুস্তাফিজুর রহমান (২৪), ভাটপাড়া গ্রামের রনজিত দাসের ছেলে সনাতন দাশ (২৫), চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ডিঙ্গেদহ গ্রামের আব্দুর রশিদের মেয়ে রেশমা (২৬), আলমডাঙ্গা উপজেলার নাগদাহ গ্রামের জান্নাতউল বিশ্বাসের ছেলে ওয়ালিউল আলম শুভ (২৫), শৈলকুপা উপজেলার বগুড়া গ্রামের মৃত মহরম বিশ্বাসের ছেলে আব্দুল আজিজ (৭৫), সদর উপজেলার নাথকুণ্ডু গ্রামের আব্দুল ওয়াহেদের ছেলে ইউনুস আলী (৩২)।

বারোবাজার পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরির্দশক মোকলেচুর রহমান জানান, যশোর থেকে ছেড়ে আসা জে.কে পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস ঝিনাইদহের দিকে যাচ্ছিলো।

এসময় সড়কের বারোবাজার পেট্রোল পাম্প এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি খাদে পড়ে যায়। পরে পেছন থেকে একটি ট্রাক ওই বাসটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই ৯ জন মারা যান। আহত হন বাসে থাকা প্রায় অর্ধশত যাত্রী। আহতদের মধ্যে একজনকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও একজন মারা যান। এছাড়া চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো একজন মারা যান। আহতদের মধ্যে সাতজনের অবস্থা আশংকাজনক। খবর পেয়ে কালীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ সদস্যরা আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করে।

ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ বলেন, দুর্ঘটনায় আহতদের চিকিৎসার ব্যায়ভার বহন ও নিহতদের পরিবারের আর্থিক সহযোগিতা করা হবে।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন