২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার,সকাল ৬:৩৩

খুলনা মাউশির উপ-পরিচালকের স্বামীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৪, ২০২০

  • শেয়ার করুন

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের খুলনা অঞ্চলের উপপরিচালক নিভা রানী পাঠকের স্বামীকে নিজ বাড়িতে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
নড়াইল সদরের ব্যানাহাটি গ্রামের নিজ বাড়িতে অরুণ রায় (৬৮) কে খুন করা হয়েছে বলে প্রাথমি ধারনা করা হচ্ছে।
অরুণ রায় বেসরকারি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ছিলেন বলে জানা যায়।
আজ শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাতে হত্যার বিষয়টি জানাজানি হলে স্বজন”রা নড়াইল সদর থানায় খবর দেয়,পরে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এসময় গ্রামবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়,অরুণ রায় নড়াইল সদরের তুলারামপুর ইউনিয়নের ব্যানাহাটি গ্রামে একাই বসবাস করতেন।
তার স্ত্রী ও এক ছেলে প্রকৌশলী এবং এক মেয়ে চিকিৎসক হিসাবে চাকরির সুবাদে খুলনায় অবস্থান করেন।
তারা সকলেই মাঝে মাঝে ছুটিতে নিজ বাড়ি নড়াইল সদরের তুলারামপুর ইউনিয়নের ব্যানাহাটি গ্রামে আসতেন।
শুক্রবার সারাদিন অরুণ রায়ের খোজ খবর ও কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে সন্ধ্যার পরে অরুণ রায়ের স্ত্রী উপ-পরিচালক নিভা রাণী পাঠক ও তার ছেলে ইন্দ্রোজিৎ রায় বাড়িতে এসে ডাকাডাকি করে ননা পেয়ে মই বেয়ে দ্বিতীয়তলা ভবনের দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে এবং চেয়ারের ওপর গলা কাটা অবস্থায় অরুণ রায়ের লাশ দেখতে পান।
তুলারামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বুলবুল আহম্মেদ সাংবাদিকদের জানান,বাড়িতে অরুণ রায় একাই থাকতেন,হঠাৎ করেই তার লাশ পাওয়া যায় আমার মনে হয় এ ঘটনা গত রাতে ঘটতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।
পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষক অরুন কুমার শুক্রবার রাতে নিজ বাড়িতে অবস্থানকালে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নড়াইল সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

ওসি মো. ইলিয়াস হোসেন জানান, হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত কারণ জানা যায়নি। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। পুলিশ হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চালাচ্ছে।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন