আজ বুধবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং, ২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সেনপাড়ায় স্বামীকে তালাক দেওয়ায় স্ত্রীর উপর হামলা: মুমুর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা) প্রতিনিধিঃ নগরীর ফুলবাড়ীগেট সেনপাড়ায় স্বামীকে তালাক দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে সাবেক স্বামী ও তার মায়ের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন ফারজানা(২৮) এক যুবতি। রড ও স্ক্রু ড্রাইভার দিয়ে এলোপাতাড়ী ভাবে তার চোক,
কান, মাথা, হাত, বুকসহ শরিরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম তিনি আশংকাজনক অবস্থায় স্থানিয় একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।
জানাগেছে, মীরেরডাঙ্গা সেনপাড়া এলাকার ফারুক খানের মেয়ে ফারজানা আক্তারকে দশ বছর আগে পিরোজপুরের তুষখালি বাজার এলাকার মৃত মোতালেবের পুত্র বিল্লাল হোসেন প্রথম পক্ষের স্ত্রীর কথা গোপন রেখে দ্বিতীয় বিবাহ করে। বিবাহের পরে ফারজানা তার প্রথম পক্ষের পুতুল নামের একটি বউ আছে কিনা জানতে চাইলে তাদের মধ্যে অশান্তি সৃষ্টি হয়। এই নিয়ে প্রতিনিয়ত স্বামী বিল্লাল ফারজানার উপর শারিরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে গত ২০ সেপ্টেম্বর ফারজানা তাকে তালাক দেয়। তালাক প্রাপ্ত স্বামী ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিল্লাল ও তার মা এ্যমিলি বেগম ৩/৪জন লোক নিয়ে সেনপাড়ার ফারজানার ঘরের দর্জা ভেঙ্গে সাবেক স্বামী বেলাল রড এবং স্ক্রু ড্রাইভার দিয়ে ফারজানার চোখে, কানে, বুকে, হাতে, পিটে, মুখে সহ শরিরের বিভিন্ন স্থানে খুজিচে খুজিচে গুরুতর আহত করে। এ সময় ফারজানার চিৎকারে স্থানিয়রা এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। পরে তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে রাত ৯টায় স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী ফারজানার ভাই লিমন জানান, ভবঘুরে বিল্লাল আমার বোনকে টাকার জন্য প্রতিনিয়ত মারধর করায় তাকে
ডিভোর্স দিয়ে দেয়। ডিভোর্স দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তারা আমার বোনকে নির্মমভাবে নির্যাতন করেছে। বর্তমানে তিনি মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আহত ফারজানার দেড় বছর বয়েসি একটি মীম নামের মেয়ে রয়েছে। তিনি আরো জানান, দৌলতপুর থাকা পুলিশ মামলা নিচ্ছেনা।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিষয়ের আরো সংবাদ

ফেসবুকে দৈনিক তথ্য