আজ বুধবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং, ২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই দাবিতে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছিলেন

শিক্ষকদের ইনক্রিমেন্ট-বৈশাখী ভাতার প্রজ্ঞাপন জারি

তথ্য ডেস্কঃ বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের ৫ ভাগ বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট এবং ২০ শতাংশ বৈশাখী ভাতা চলতি বছরের ১ জুলাই থেকেই কার্যকর ধরে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বিষয়টি জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, শিক্ষকদের কল্যাণে এবং তাদের জীবনমান ও পেশাগত উন্নয়নে সব ধরনের সহায়তা প্রদান করছে সরকার। এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের দাবি মেনে শতকরা ৫ ভাগ বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট এবং ২০ শতাংশ বৈশাখী ভাতা দিতে সম্প্রতি (৮ নভেম্বর) গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দেন। তার ঘোষণা কার্যকর করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বৃহস্পতিবার প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকার সেগুনবাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এ তথ্য জানান। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের সদ্য প্রয়াত মহাপরিচালক অধ্যাপক মাহাবুবুর রহমানের স্মরণে এই সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় নাহিদ বলেন, শিক্ষকরা চলতি বছরের জুলাই থেকে এ সুবিধা প্রাপ্য হবেন। এ ছাড়া স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা পরিচালনার নীতিমালাও প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন। এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের ৫ শতাংশ বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট ও ২০ শতাংশ বৈশাখী ভাতা প্রদানের ঘোষণা দেয়ায় এবং স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা স্থাপন, পরিচালনা, জনবল কাঠামো ও বেতন-ভাতাদি নীতিমালা অনুমোদন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানান শিক্ষামন্ত্রী।

প্রয়াত মহাপরিচালকের কর্মময় জীবনের উপর আলোকপাত করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, তার অভাব সহজে পূরণ হবে না। প্রফেসর মাহাবুবুর রহমান একজন আন্তরিক ও নিবেদিতপ্রাণ শিক্ষক ছিলেন। মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান নাহিদ।

স্মরণসভায় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, মাউশি’র মহাপরিচালক (রুটিন দায়িত্ব) প্রফেসর মো. শামছুল হুদা এবং প্রয়াত মহাপরিচালকের সহকর্মী, এডুকেশন রিপোর্টারস অ্যাসেসিয়েসনের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির নেওয়াজ, মাউশির সাবেক মহাপরিচালক অধ্যাপক ওয়াহেদুজ্জামান, ফাহিমা খাতুন, নোমানুর রশিদ নোমান, রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি বিদ্যালয়-কলেজ প্রধানরা তাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। পরে প্রয়াত মহাপরিচালকের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

 

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিষয়ের আরো সংবাদ

ফেসবুকে দৈনিক তথ্য