আজ শনিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভোমরা সীমান্তে ১০৫ বোতল ফেনসিডিলসহ চোরাচালানী আটক

সীমান্ত ব্যুরো:  ভোমরা সীমান্ত থেকে ১০৫ বোতল ফেনসিডিলসহ মাদক চোরাচালানী আবুল হাসান (খোকা) কে আটক করেছে ভোমরা ক্যাম্পের বিজিবির স্পেশাল ফোর্স। শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর ২০২০) সকালে ভোমরা সীমান্তের ভেঁড়িবাঁধের নিচ থেকে মাদক চোরাচালানী আবুল হাসানকে হাতে নাতে ধরে ফেলে বিজিবির স্পেশাল ফোর্স। আটক চোরাচালানী আবুল হাসান খোকা ভোমরা গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে। বিজিবি সূত্র জানায়, ৫/৬ জনের একটি চোরাচালানী দল ভারতের ঘোজাডাঙ্গা সীমান্ত এলাকা থেকে একটি ফেনসিডিলের চালান ভোমরা সীমান্ত দিয়ে পাচার আনার সময় ওত পেতে বসে থাকা বিজিবির জোয়ানরা ধাওয়া করলে অন্যরা পালিয়ে গেলেও হাতে নাতে ধরা পড়ে আবুল হাসান। আটক হওয়া আবুল হাসানকে ভোমরা ক্যাম্পে নিয়ে আসার পর জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে অনেক অজানা তথ্য। এ ব্যাপারে বিজিবির পক্ষ থেকে ধৃত আবুল হাসান খোকাকে ১০৫ বোতল ফেনসিডিলসহ প্রধান আসামী করে সাতক্ষীরা সদর থানায় মাদক সোপর্দ করা হয়। এদিকে সীমান্তের একটি নির্ভযোগ্য গোপন সূত্র জানায়, ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকা মাদক স¤্রাট লক্ষ্মীদাঁড়ী গ্রামের মৃত আজিজ মিস্ত্রির ছেলে রেজাউল ইসলাম রেজার নেতৃত্বে ৫/৬ জনের সংঘবদ্ধ একটি মাদক চোরাচালানী দল ভারতে ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তে অবস্থান করে। ভোমরা সীমান্তে বিজিবি স্পেশাল ফোর্সের অবস্থান জানতে পেরে রেজা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে চোরাচালানীদের বাংলাদেশে প্রবেশ না করতে সতর্ক করে দেয়। কিন্তু রেজা গভীর রাত পর্যন্ত বাইসাইকেল যোগে সীমান্ত এলাকায় ঘোরাফেরা করেও ওত পেতে বসে থাকা বিজিবি জোয়ানদের সন্ধান না পেয়ে সে তার দ্বিতীয় স্ত্রী ঋষি কন্যা কবিতার বাড়ি ভোমরা দাস পাড়ায় চলে যায়। এদিকে শনিবার সকালে রেজার মোবাইল ফোনে সাঁড়া পেয়ে চোরাচালানী দল ফেনসিডিলের চালান নিয়ে সীমান্ত পার হওয়ার সময় বিজিবির ধাওয়া খেয়ে ৫ জন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও আটক হয় আবুল হাসান খোকা।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

     এই বিষয়ের আরো সংবাদ

ফেসবুকে দৈনিক তথ্য