১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার,দুপুর ১:৪০

শিরোনাম
সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা, স্থগিত বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষাও মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে: প্রধানমন্ত্রী খুলনা মহানগরীর নতুন রাস্তা, জিরোপয়েন্ট ও শিববাড়ি মোড়ে সড়ক অবরোধ কেএমপি খুলনার অফিসার্স মেসের উদ্বোধন করেন আইজিপি খুলনায় আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত খুলনা জেলা আ’লীগের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত কয়রায় মহসিন রেজা, ডুমুরিয়ায় এজাজ ও পাইকগাছায় আনন্দ চেয়ারম্যান নির্বাচিত খুলনায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন ফেরদৌস আহম্মেদ’র প্রধানমন্ত্রী গরিব-দু:খী মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করে চলেছেন-কেসিসি মেয়র

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির স্বপ্নকে হত্যা করা হয়েছিল

প্রকাশিত: আগস্ট ৯, ২০২৩

  • শেয়ার করুন

খবর বিজ্ঞপ্তির : খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে খুনিরা দেশকে পিছিয়ে দিয়েছিল। তাকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির স্বপ্নকে হত্যা করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ আরও এগিয়ে যেত। খুনিরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে বাঙালি জাতিকে কলঙ্কিত করেছে। খুনিরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে বাঙালির বুকে কাল দাগ লাগিয়েছে। তিনি বলেন, খুনিরা সেদিন ভেবেছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলে, হয়ে যাবে শেষ। তারা জানে না, বঙ্গবন্ধু মানেই স্বাধীনতা, বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। ব্যক্তি মুজিবকে হত্যা করা যায় কিন্তু তাঁর আদর্শকে হত্যা করা যাবে না।
তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছেন। তার স্বপ্ন বাস্তবায়নে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন। দেশের এগিয়ে চলা এবং চলমান উন্নয়ন যেন বাধাগ্রস্ত না হয়, সেদিকে আমাদেরকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনও ষড়যন্ত্র করছে। তারা দেশকে অস্থিতিশীল করে ক্ষমতায় যেতে চায়। তাই সকল নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানান তিনি।
আজ বুধবার সন্ধ্যায় ২৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যলয়ে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ৪০ দিনব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে ২৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ্যাড. কাজী বাদশা মিয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ফেরদৌস আলম চাঁন ফারাজী, সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, সদর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলাম, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজনিন নাহার কনা, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এম এ নাসিম। ২৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই পলাশের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শামীম মোশাররফের পরিচালনায় এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা শেখ সিদ্দিকুর রহমান, গোলাম হায়দার বুলবুল, এ্যাড. শামীম আহমেদ পলাশ, আব্দুল ওয়াদুদ, এম এ মতিন, রফিকুল ইসলাম ডাবলু, মো. দাদন মিয়া, আসাদুর রহমান, ফকির মো. টুটুল ইসলাম, এ্যাড. পাপ্পু, কাজী নজরুল ইসলাম, শেখ শহিদুল ইসলাম, জাহিদ হোসেন, শহিদুল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম বুলবুল, শেখ লুৎফর রহমান, খাদিজা কবির তুলি, মাওলানা নাঈমুর রহমান, শাহিন মল্লিক, ফেরদৌস আলম রিতা, শবনম মুস্তারি বকুল, আলামিন কবির, তুষার সরকার, রাজু আহমেদ, আবিদ হোসেন, আকলিমা খাতুন সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী।
শোকসভা শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন