১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার,বিকাল ৪:০৪

শিরোনাম
কয়রায় মহসিন রেজা, ডুমুরিয়ায় এজাজ ও পাইকগাছায় আনন্দ চেয়ারম্যান নির্বাচিত খুলনায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন ফেরদৌস আহম্মেদ’র প্রধানমন্ত্রী গরিব-দু:খী মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করে চলেছেন-কেসিসি মেয়র খুলনায় তিনদফা দাবিতে ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারীদের কর্মবিরতি পালন দীর্ঘ অপেক্ষার পর রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত হলো মোংলা বন্দর সরকার সবসময় দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে থাকবে-ভূমিমন্ত্রী খুলনায় নতুন ভবনে নতুন আঙ্গিকে গণহত্যা জাদুঘর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারিরিক সম্পর্ক; মোংলা থানার ওসি (তদন্ত) ক্লোজড সুন্দরবনে আগুন, কারণ বের করতে আরও ৭ কার্যদিবস সময় নিলো তদন্ত কমিটি

সশস্ত্র বাহিনী দিবসে খুলনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: নভেম্বর ২১, ২০২৩

  • শেয়ার করুন

তথ্য প্রতিবেদক : সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষ্যে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আজ (মঙ্গলবার) বিকালে খুলনাস্থ বানৌজা তিতুমীর ঘাঁটিতে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন খুলনা নৌ অঞ্চলের কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল মাসুদ ইকবাল।

স্বাগত বক্তব্যে রিয়ার এডমিরাল মাসুদ ইকবাল বলেন, দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সশস্ত্র বাহিনীর অবদান অনস্বীকার্য। এই বাহিনী সৃষ্টি হয়েছে রাষ্ট্র ও জনগণের কল্যাণের উদ্দেশ্যে। ১৯৭১ সালের ২১শে নভেম্বর সাধারণ জনতার সাথে কাধে কাধ মিলিয়ে তিন বাহিনী সম্মিলিতভাবে হানাদার বাহিনীর ওপর আক্রমণ করে আমাদের স্বাধীনতার বিজয় অর্জন করে। মুক্তিযুদ্ধে সশস্ত্র বাহিনীর অবদান ও বীরত্বগাঁথা জাতি গভীরভাবে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে। যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহযোগিতাসহ জাতি গঠনমূলক কর্মকান্ডে সশস্ত্র বাহিনী প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, এই দিনটি নতুন প্রজন্মকে তাদের পূর্বসুরীদের বিশেষ করে সামরিক বাহিনীর সদস্যদের কর্তব্য নিষ্ঠা, অকৃত্রিম দেশপ্রেম, অদম্য মনোবল সর্বোপরি দেশ ও জাতির প্রতি তাদের মহান অঙ্গীকারের কথা বার বার স্মরণ করিয়ে দেয়।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি দক্ষ ও চৌকস সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলেন এবং সে সময় স্বতন্ত্র ট্রেনিং সেন্টার প্রতিষ্ঠা করেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নৌবাহিনী আজ একটি পেশাদার ও ত্রিমাত্রিক বাহিনীতে পরিণত হয়েছে। সমুদ্র সম্পদ ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় নৌবাহিনীতে যুক্ত হয়েছে আধুনিক যুদ্ধ জাহাজ, সাবমেরিন ও বিভিন্ন যুদ্ধসরঞ্জাম। প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনীকে আরো আধুনিক ও যুগোপযোগী করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন।

বানৌজা তিতুমীর ঘাঁটিতে খুলনা ও বরিশাল বিভাগের বীর মুক্তিযোদ্ধা, অবসরপ্রাপ্ত সামরিক কর্মকর্তা ও তাদের পারিবারের সম্মানে সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, সেনা ও নৌবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণ ছাড়াও খুলনা ও বরিশাল বিভাগের বীর মুক্তিযোদ্ধা, অবসারপ্রাপ্ত সামরিক কর্মকর্তা, অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন