আজ শনিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দুই ট্রাক ইলিশ মাছ রফতানি করা হয়েছে ভারতে

মিলন হোসেন বেনাপোল ।
দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতের সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য বিশেষ শুভেচ্ছা স্বরূপ এক হাজার ৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশ পাঠিয়েছে বাংলাদেশ সরকার।  বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে আজ এই ইলিশের প্রথম চালান প্রবেশ করেছে। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর)  সন্ধ্যা ৬টার সময় প্রথম চালানের দুইটি ট্রাকে ১২ মেট্রিক টন ইলিশ মাছ ভারতে পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশ করে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের জন্য এই ইলিশের শুভেচ্ছা। ২০১২ সালে বাংলাদেশ থেকে ভারতে ইলিশ মাছ রফতানির ওপর  নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। তবে এরপর বাংলাদেশ সরকার একাধিকবার ভারত সরকারকে শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে ইলিশ মাছ দিয়েছে। গত বছরও দুর্গাপূজার সময় দেওয়া হয়েছিল ৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ মাছ।

আজ দুপুরে ইলিশের চালান বেনাপোল বন্দর এলাকায় এসে পৌঁছায়। এরপর কাস্টমসের আনুষ্ঠানিকতা শেষে সন্ধ্যা ৬টার সময় ছয় মেট্রিক টন করে দুটি ট্রাকে মোট ১২ মেট্রিক টন ইলিশ মাছ ভারতে প্রবেশ করে। ইলিশ রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান হলো খুলনার জাহানাবাদ সি ফুড লিমিটেড। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ভারতের জেকে এন্টারপ্রাইজ। এর সিএন্ডএফ এজেন্ট বেনাপোলের নীলা এন্টারপ্রাইজ। প্রতি কেজি ইলিশ মাছ মার্কিন ১০ ডলারে রফতানি করা হলো। যা বাংলাদেশি টাকায় ৮৫০ টাকা।
বেনাপোল মৎস্য অফিসের কর্মকর্তা আবুল হাসান জানান, এক হাজার ৪৫০ মেট্রিক টনের মধ্যে সোমবার ইলিশের প্রথম চালান ১২ মেট্রিক টন ভারতে প্রবেশ করেছে। পর্যায়ক্রমে বাকি ইলিশ মাছ রফতানি হবে ভারতে।
এদিকে ভারতে বাংলাদেশের ইলিশ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকলেও অবৈধপথে ইলিশ যাওয়া বন্ধ হয়নি। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের একাধিক সীমান্ত এলাকা দিয়ে বিশেষ করে সাতক্ষীরার ভোমরা বন্দর এলাকা, বেনাপোল বন্দর এলাকা তথা শার্শা উপজেলার পুটখালী, ঘিবা, কাশিপুর এবং যশোর এর চৌগাছা এলাকা, ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুরের পুড়োপাড়া, শ্যামপুর দিয়েও চোরাইপথে বাংলাদেশের ইলিশ পাচার হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের বাজারে। বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর হাতে মাঝে মাঝে চালান আটকও  হচ্ছে।
প্রেরক
মিলন হোসেন বেনাপোল
তারিখ ১৪ /০৯ /২০২০
মোবাইল ০১৭১২২১৭১৪৩

ভাল লাগলে শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

     এই বিষয়ের আরো সংবাদ

ফেসবুকে দৈনিক তথ্য