২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার,রাত ১২:২৯

ডুমুরিয়ায় ক্লিনিক মালিক ও বাল্য বিয়ের অপরাধে শাশুড়ির জেল

প্রকাশিত: আগস্ট ১০, ২০২৩

  • শেয়ার করুন

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি : ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে খুলনার ডুমুরিয়ার চুকনগরের বহুল আলোচিত হালিমা মেমোরিয়াল নার্সিংহোম এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক কথিত ডাঃ কামাল হোসেন (৪০)কে ৭ দিনের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। একই সাথে ক্লিনিকটি সিলগালা করা হয়েছে। অপর এক অভিযানে বাল্য বিয়ে সংগঠনের অপরাধে নববধুর শাশুড়ীকে ২৯ দিনের কারাদণ্ডাদেশ দেয়া হয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শরীফ আসিফ রহমান এ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। আদালত সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার চুকনগর বাজারে অবস্থিত হালিমা মেমোরিয়াল নার্সিংহোম এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে একের পর এক অপ চিকিৎসায় সাধারণ রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ ওঠে। তাছাড়া স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করে ক্লিনিক পরিচালনার অপরাধে একাধিক বার বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। ফলে বিষয়টি আমলে নেয় প্রশাসনের উধর্ধতন কর্তৃপক্ষ। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে অভিযান পরিচালনা করে স্বাস্থ্য বিধি লঙ্ঘনের অপরাধে ক্লিনিক মালিককে ৭ দিনের কারাদণ্ডদেশ ও একই সাথে ক্লিনিক টি সিলগালা করা হয়।
অপরদিকে পৃথক একটি অভিযানে ডুমুরিয়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বাল্য বিয়ের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অপরাধে নববধূর শাশুড়ী রুনু বেগম (৫২) কে ২৯ দিনের কারাদণ্ডদেশ দেয়া হয়েছে। তিনি বটিয়াঘাটার চক্রাখালী এলাকার বাসিন্দা। আদালত পরিচালনায় সহযোগিতা করেন উপজেলা স্যানেটরী ইন্সপেক্টর সুখেন্দু ঘোষ, পেশকার মোঃ আবুজার হোসাইন এবং থানা পুলিশের সদস্যবৃন্দ।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন