২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার,সকাল ৮:৫০

শিরোনাম
কয়রায় মহসিন রেজা, ডুমুরিয়ায় এজাজ ও পাইকগাছায় আনন্দ চেয়ারম্যান নির্বাচিত খুলনায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন ফেরদৌস আহম্মেদ’র প্রধানমন্ত্রী গরিব-দু:খী মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করে চলেছেন-কেসিসি মেয়র খুলনায় তিনদফা দাবিতে ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারীদের কর্মবিরতি পালন দীর্ঘ অপেক্ষার পর রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত হলো মোংলা বন্দর সরকার সবসময় দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে থাকবে-ভূমিমন্ত্রী খুলনায় নতুন ভবনে নতুন আঙ্গিকে গণহত্যা জাদুঘর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারিরিক সম্পর্ক; মোংলা থানার ওসি (তদন্ত) ক্লোজড সুন্দরবনে আগুন, কারণ বের করতে আরও ৭ কার্যদিবস সময় নিলো তদন্ত কমিটি

খুলনা মহানগর বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনকে দূর্বল করার অপচেষ্টা কারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের আহবান স্বেচ্ছাসেবক দলের

প্রকাশিত: আগস্ট ২৩, ২০২০

  • শেয়ার করুন

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল, খুলনা মহানগর ও জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, আমরা গভীর বেদনা ও উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করিলাম শনিবার ৬নং কেডি ঘোষ রোডস্থ দলীয় কার্য্যলয়ে বেলা ১১টায় “জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল, খুলনা মহানগর”-এর ব্যানারে ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সদর ও সোনাডাঙ্গা থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকদ্বয়, সাংগঠনিক সম্পাদকদ্বয় এবং কতিপয় ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি-সম্পাদক ও নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের চার/পাঁচ জন নেতা-কর্মী। যেটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক! আমরা হতাশ, বেদনাহত এবং ক্ষুব্ধ।
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল-এর ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ছিল ১৯ আগষ্ট’২০২০। কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দল কর্তৃক অনুমোদিত খুলনা মহানগর ও জেলা কমিটির যৌথ উদ্যোগে ১৯আগষ্ট সকাল ১১টায় দলীয় কার্য্যলয়ে হাজার হাজার নেতা-কর্মীদের উপস্থিতিতে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে “আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল” পালিত হয়। এছাড়া মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী’র পোষ্টার ছাপানো হয়েছে যাহা নগরীর দেয়ালে দেয়ালে শোভা পাচ্ছে। তদুপরি শনিবারের এই অনুষ্ঠান এবং সেখানে নগর বিএনপির সভাপতি এবং দুই থানা বিএনপির কতিপয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতির মাধ্যমে তারা স্পষ্টতঃ কেন্দ্রীয় স্বেছাসেবক দল-এর অনুমোদিত কমিটিকে অবজ্ঞা ও স্বেচ্ছাসেবক দল কেন্দ্রীয় কমিটিকে বৃদ্ধাঙ্গলী প্রদর্শন করেছে। শুধূ তাই নয়, এ বেওয়ারিশ কর্মসূচীতে যোগদানের মাধ্যমে উপরেল্লিখিত ব্যক্তিবর্গ যে খুলনা মহানগর বিএনপির বিভাজনের রাজনীতির ধারক ও বাস্তবায়ক তাহা আবারও প্রমানিত হল।
আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই এই ধরণের বিভাজন প্রিয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের নেতৃত্বে দেশমাতা বেগম খালেদা জিয়ার স্বপ্ন “গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও জনগনের ভোটাধিকার পুণঃপ্রতিষ্ঠার আন্দোলন” খুলনায় কখনও সফলতার মুখ দেখবে না।
আমরা মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু ও থানা বিএনপির নেতৃবৃন্দের এধরণের অপরিনামদর্শী কার্যকলাপের তীব্র ধিক্কার জানাই। আশা করবো ভবিষ্যতে তারা এ ধরণের বিভাজনের রাজনীতি থেকে নিজেদের বিরত রাখবেন। এই ধরণের বিভাজনের রাজনীতির মাধ্যমে যারা খুলনা মহানগর বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠন সমূহকে দূর্বল করার অপচেষ্টায় লিপ্ত তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রতি আমরা উদাত্ত আহবান জানাই। বিবৃতি দাতারা হলেন খুলনা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এস এম একরামুল হক হেলাল, খুলনা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শেখ তৈয়বুর রহমান, খুলনা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হিল্টন, খুলনা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান রনু, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্তাসির আল মামুন ও জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক সাব্বির হোসেন রানা প্রমূখ। খবর বিজ্ঞপ্তি

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন