২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার,সকাল ৮:৫৯

শিরোনাম
কয়রায় মহসিন রেজা, ডুমুরিয়ায় এজাজ ও পাইকগাছায় আনন্দ চেয়ারম্যান নির্বাচিত খুলনায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন ফেরদৌস আহম্মেদ’র প্রধানমন্ত্রী গরিব-দু:খী মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করে চলেছেন-কেসিসি মেয়র খুলনায় তিনদফা দাবিতে ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারীদের কর্মবিরতি পালন দীর্ঘ অপেক্ষার পর রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত হলো মোংলা বন্দর সরকার সবসময় দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে থাকবে-ভূমিমন্ত্রী খুলনায় নতুন ভবনে নতুন আঙ্গিকে গণহত্যা জাদুঘর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারিরিক সম্পর্ক; মোংলা থানার ওসি (তদন্ত) ক্লোজড সুন্দরবনে আগুন, কারণ বের করতে আরও ৭ কার্যদিবস সময় নিলো তদন্ত কমিটি

খুলনায় গয়েশ্বরের অবস্থানরত বাড়িতে অভিযান, আটক ১৩

প্রকাশিত: অক্টোবর ২১, ২০২২

  • শেয়ার করুন

বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ সফল করতে বৃহস্পতিবার (২০ অক্টোবর) বিকেলে খুলনায় এসেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। রাতে ঘুমাতে খুলনা নগরীর বসুপাড়া এলাকার সাবেক এক বিএনপি নেতার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন তিনি।

ওই বাড়িতে অভিযান চালিয়ে গয়েশ্বরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসা বিএনপির ১৩ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

খুলনা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন জানান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় খুলনার গণসমাবেশের সমন্বয় কমিটির প্রধান উপদেষ্টা।

সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন শেষ করে তিনি বাগেরহাট জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি কাজী খায়রুজ্জামান শিপনের খুলনাস্থ বাসভবনে যান। বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা নেতাকর্মীরা তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ১৩ জনকে আটক করেছে।

এ ব্যাপারে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, হাতে লাঠি, কোমরে পিস্তল ঝুলিয়ে কয়েকজন বাড়িতে প্রবেশ করে ত্রাশের সৃষ্টি করেছে। এরা পুলিশ কিনা বোঝার উপায় নেই। তারা আমার পাশ থেকে ১৩ জনকে আটক করে নিয়ে গেছে।

নগরের সোনাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) মমতাজুল হক বলেন, বিভিন্ন স্থানে ওয়ারেন্টের আসামি ধরা হচ্ছে। কোন এলাকা থেকে কাকে ধরা হয়েছে তা সকালে বলতে পারবো।

এর আগে সংবাদ সম্মেলনে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় সমাবেশকে ঘিরে দলের নেতাকর্মীদের ধরপাকড় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, কর্মসূচিতে যত বাধা আসবে ততই আন্দোলনে সফলতা আসবে।

শুক্রবার খুলনায় বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ কর্মসূচিকে বাধাগ্রস্ত করতে পুলিশ ও আওয়ামী সন্ত্রাসীরা একযোগে কাজ করছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে, ভয়ভীতি দেখিয়ে লাভ হবে না।

প্রেস ব্রিফিংয়ের শুরুতে নগর বিএনপির সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার ও নেতাকর্মীদের বাড়িতে তল্লাশি চালানোর পরিসংখ্যান তুলে ধরেন।

গ্রেপ্তারদের মধ্যে রয়েছেন— সাবেক কাউন্সিলর মাহমুদ আলম বাবু মোড়ল, নগর বিএনপির সদস্য খন্দকার হাসিনুল ইসলাম নিক, বেলাল হোসেন, ২৫নং ওয়ার্ড বিএনপি আহ্বায়ক নজরুল ইসলাম, যুবদল নেতা কাজী সেলিম, ডালিম, ডা. শাহ আলম, জুলু, গোলাম মোস্তফা ভূট্টো, মিজানুর রহমান বাবু এবং বাগেরহাট থেকে সমাবেশে যোগ দিতে খুলনায় আসা কৃষক দল নেতা মিঠুসহ চার জন।

এছাড়া স্বেচ্ছাসেবক দল জেলা সভাপতি শেখ তৈয়েবুর রহমান, নগর যুবদল সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর, যুবদল নেতা আব্দুল আজিজ সুমন, জাবির আলী, স্বেচ্ছাসেবক দলের খায়রুজ্জামান সজীব, কাউন্সিলর হাফিজুর রহমান মনি, বুলবুল মোল্লা, তৌহিদ, ফারুক হোসেন, আলতাফ খান, আবু সাঈদ হাওলাদার আব্বাস, কাজী মিজানসহ অসংখ্য নেতাকর্মীর বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালায়। অনেকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয় বলে শফিকুল আলম তুহিন অভিযোগ করেন।

এদিকে খুলনার বাইরে বিভিন্ন জেলা থেকে আসার পথে বাস থামিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে মোবাইল নিয়ে ফেসবুক চেক করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিএনপি সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় অনেককে মারধর করে সব কেড়ে নেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ।বিশেষ করে বাগেরহাটের বিভিন্ন স্থানে হামলা-নির্যাতনের খবর পাওয়া গেছে।

খুলনা মহানগরের সোনালী ব্যাংক চত্বরে আগামী শনিবার বিএনপির খুলনা বিভাগীয় গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে কর্মসূচি সমন্বয় করছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন