আজ রবিবার, ৭ই মার্চ, ২০২১ ইং, ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

খুলনার কপিলমুনিতে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আসবেন ৯ ডিসেম্বর

এ কে আজাদ, কপিলমুনিঃ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয়  মন্ত্রী আলহাজ্ব এ্যড. আ ক ম মোজাম্মেল হক (এমপি) আগামী ৯ ডিসেম্বর খুলনার কপিলমুনিতে আগমন করবেন বলে সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা শুফি আব্দুল্লাহিল মারুফ। তিনি সোমবার এক পত্রের মাধ্যমে মন্ত্রীর সফরসুচি নির্ধারণ করে তা বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে নির্দেশ প্রদান করেছেন।

৭ ডিসেম্বর প্রাপ্ত সফরসূচিতে উল্লেখ করা হয়েছে, আগামী ৯ ডিসেম্বর সকাল ৮টায় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ্ব আ ক ম মোজাম্মেল হক ঢাকাস্থ মিন্টু রোডের বাসা হতে   হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে যাবেন। সেখান থেকে সকাল ৯ টায় ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইটে যশোরের উদ্যেশ্যে রওয়ানা হবেন তিনি। এরপর ৯ টা ৪০ মিনিটে তিনি যশোর থেকে খুলনার পাইকগাছার উদ্যেশ্যে রওয়ানা হবেন।

দুপুর ১২ টায় তিনি পাইকগাছা উপজেলার ঐতিহাসিক মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত কপিলমুনিতে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি কমপ্লেক্সের শুভ উদ্বোধন ও যুদ্ধকালীন রাজাকারদের ব্যবহৃত সেই সুরম্য ভবনটি (রায় সাহেব বিনোদ বিহারী সাধুর বাড়িটি) পরিদর্শন করবেন।দুপুর ১ টায় হরিঢালী ইউনিয়নের মাহমুদকাটির ঐতিহ্যবাহী অনির্বাণ লাইব্রেরী পরিদর্শন করবেন। এবং দুপুর ২ টায় মধ্যাহ্নভোজের পর বিকাল ৩ টায় কপিলমুনিতে অনুষ্ঠিত হানাদার মুক্তদিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন। বিকাল সাড়ে ৫ টায় ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর বদ্ধভুমি পরিদর্শন ও স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন তিনি।

এরপর ঢাকার উদ্যেশ্যে রওয়ানা হবেন মন্ত্রী। এ উপলক্ষে ইতোমধ্যে পাইকগাছা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

এর আগে কপিলমুনিবাসীর পক্ষ থেকে একটি প্রতিনিধি দল গত ৩০ নভেম্বর সোমবার মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ সময় দক্ষিণাঞ্চলে মন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে একটি সফর কর্মসূচির দাবি করেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। ফলে মাননীয় মন্ত্রী দক্ষিণাঞ্চলে সফর করার আশ্বাসও দেন। সাক্ষাৎকালে কপিলমুনির ইতিহাস-ঐহিত্য সংরক্ষণের দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। ওই সময় সচিবালয়ে মন্ত্রীর দপ্তরে সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সচিব তপন কান্তি ঘোষসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ছিলেন, দক্ষিনাঞ্চলের সুন্দরবন ও তৎসংলগ্ন উপকূল সুরক্ষা আন্দোলনের সমন্বয়ক সাংবাদিক নিখিল চন্দ্র ভদ্রের নেতৃত্বে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতা সাকিলা পারভীন, সিনিয়র সাংবাদিক পার্থ প্রতীম ভট্টাচার্য্য, শিক্ষক প্রদীপ কুমার মণ্ডল, ইঞ্জিনিয়ার শেখ আব্দুল্লাহ আল মামুন, অধ্যাপক জি এম আমিনুল ইসলাম, সাংবাদিক শেখ হারুন অর রশীদ ও অনির্বাণ লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক প্রভাত দেবনাথ।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

     এই বিষয়ের আরো সংবাদ

ফেসবুকে দৈনিক তথ্য