আজ শনিবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

খুলনায় সন্ত্রাসী কর্তৃক শামীম ফার্মেসির মালিক ও কর্মচারী জখম ও দোকান ভাঙচুর

খুলনায় হেরাজ মার্কেটে শামীম ফার্মেসির মালিক ও কর্মচারীদেরকে মদ্যপায়ী সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি ভাবে আঘাত, দোকান ভাঙচুর করে। তারই প্রতিবাদে খুলনা জেলা ও মহানগর সকল ফার্মেসি বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

গতকাল(০৯ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টায় হেরাজ মার্কেটে অবস্থিত শামীম ফার্মেসিতে এক মদ্যপায়ী ঔষধ কিনতে আসে। দোকানে ওই ওষুধ না থাকায়, তাকে অন্য দোকানে যেতে পরামর্শ দেন। এতে মদ্যপায়ী সন্ত্রাসী ক্ষিপ্ত হয়ে বলে আমি মদ খেয়েছি বলে আমার কাছে ওষুধ বিক্রি করবে না? তখন দোকান থেকে বলা হয় এই ওষুধ আমাদের দোকানে নাই। তখন সে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে তার সন্ত্রাসী বাহিনীকে মোবাইল করে দোকানের সামনে হাজির হতে বলে। তাৎক্ষণিক ভাবে প্রায় ২০/২৫ জন সন্ত্রাসী এসে দোকানে হামলা চালায়। মাতাল সন্ত্রাসীরা দোকানে অভ্যন্তরে প্রবেশ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ফার্মেসির মালিক এনামুল ও তার কর্মচারীদেরকে এলোপাতাড়ি ভাবে আঘাত ও জখম করে দোকান ভাঙচুর করে।এসময়ে লক্ষ করা যায় পুলিশের উপস্থিতি। কিন্তু পুলিশ তাদের সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেও তারা পুলিশকে উপেক্ষা করে পুনরায় হামলা চালায়। পুলিশ অসহায়ের ভূমিকা পালন করে।
তারই প্রতিবাদে আজ ৩০ মিনিটের নোটিশে ,খুলনা জেলা ও মহানগরের সকল ঔষধের দোকান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভ্রাতুষ্পুত্র ,খুলনা ২ আসনের সাংসদ, শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল ও জেলা প্রশাসক খুলনা এর আশ্বাসের ভিত্তিতে,,
২৪ ঘন্টার মধ্যে আসামি গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করবেন বলে জানিয়েছেন।
মাত্র ২ ঘন্টা খুলনা জেলা ও মহানগরের সকল ঔষধের দোকান বন্ধ ছিল।
থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন বলছে. দোকানের ভিডিও দেখে সন্ত্রাসীদেরকে চিহ্নিত করে দ্রুত তাদেরকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

     এই বিষয়ের আরো সংবাদ