১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার,রাত ৪:৪৫

শিরোনাম
কয়রায় মহসিন রেজা, ডুমুরিয়ায় এজাজ ও পাইকগাছায় আনন্দ চেয়ারম্যান নির্বাচিত খুলনায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন ফেরদৌস আহম্মেদ’র প্রধানমন্ত্রী গরিব-দু:খী মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করে চলেছেন-কেসিসি মেয়র খুলনায় তিনদফা দাবিতে ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারীদের কর্মবিরতি পালন দীর্ঘ অপেক্ষার পর রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত হলো মোংলা বন্দর সরকার সবসময় দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে থাকবে-ভূমিমন্ত্রী খুলনায় নতুন ভবনে নতুন আঙ্গিকে গণহত্যা জাদুঘর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারিরিক সম্পর্ক; মোংলা থানার ওসি (তদন্ত) ক্লোজড সুন্দরবনে আগুন, কারণ বের করতে আরও ৭ কার্যদিবস সময় নিলো তদন্ত কমিটি

খুলনায় চিকিৎসক হত্যা মামলায় গ্রেফতার ১

প্রকাশিত: জুন ১৭, ২০২০

  • শেয়ার করুন

খুলনা গল্লামারি রাইসা ক্লিনিকের পরিচালক ডা. মো. আব্দুর রকিব খানের (৫৯) মৃত্যুর ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুন) দুপুরে নিহতের ছোট ভাই খুলনা মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রভাষক সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে খুলনা সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। হত্যার ঘটনায় চারজনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ১০ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করা হয়েছে।

খুলনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম বাহার বলেন, পুলিশ এ ঘটনায় বেজেরডাঙ্গা থেকে মঙ্গলবার রাতে আবদুর রহিম নামের একজনকে আটক করেছে। পরে তাকে মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

এদিকে বিকেলে মহানগরীর নিরালা মসজিদের সামনে নামাজে জানাজা শেষে নিরালা কবরস্থানে ডা. রকিবকে দাফন করা হয়েছে।

নগরীর মোহাম্মদ নগরের পল্লবী সড়কের বাসিন্দা আবুল আলীর স্ত্রী শিউলী বেগমকে ১৪ জুন সিজারের জন্য রাইসা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। ওই দিন বিকেল ৫টায় অপারেশন হয়। বাচ্চা ও মা প্রথমে সুস্থ ছিলেন। পরে রোগীর রক্তক্ষরণ হলে ১৫ জুন সকালে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানের চিকিৎসকরাও রোগী রক্তক্ষরণ বন্ধ করতে না পেরে ঢাকায় রেফার্ড করেন। ঢাকায় নেওয়ার পথে ১৫ জুন রাতে শিউলী বেগম মারা যান।

ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, ১৫ জুন রাতেই এ ঘটনায় সম্ভাব্য হামলাকারী রোগীর স্বজন কুদ্দুস, আরিফ, সবুরসহ কয়েকজন নারী। তারা ১৫ জুন রাত ৮টা ৫০ মিনিটের দিকে ডা. রকিবকে লাথি ঘুষি দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে আঘাত করতে থাকে একপর্যায়ে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়। এতে তার মাথার পেছনে জখম হয়। তাকে প্রথমে সিটি মেডিকেলে পরে গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে শেখ আবু নাসের হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তিনি শুধু রাইসা ক্লিনিকের মালিক নন বাগেরহাট মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুলের (ম্যাটস) অধ্যক্ষও ছিলেন। এছাড়া সিনিয়র এ চিকিৎসক বিসিএস স্বাস্থ্য প্রশাসনে পরিচালক পদমর্যাদায় চাকরি করতেন। বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) খুলনার আজীবন সদস্য ছিলেন ডা. রকিব।

খুলনায় চিকিৎসক রকিব উদ্দিনের হত্যাকারীদের অবিলম্বে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন

স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) এর সভাপতি ডা. ইকবাল আর্সলান। অন্যথায় এর পরিণাম ভয়াবহ হবে বলে হুঁশিয়ারী দিয়েছেন তিনি। বুধবার  নিজ ফেসবুকওয়ালে এ নিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন ডা. ইকবাল আর্সলান।


ডা. ইকবাল আর্সলান লিখেছেন, ‘‘খুলনার আইন শৃঙ্খলাবাহিনী এবং প্রশাসন আমার ভাইয়ের হত্যকারীকে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনুন। যেকোন পরিচয়ে হত্যাকারীদের কেউ আড়াল করার চেষ্টা করবেন না। পরিনাম ভয়াবহ হবে, প্রয়োজনে এই কোরনা কালেই হবে।’’

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন