২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার,সন্ধ্যা ৭:১৬

খুলনায় একদিনে আরও ৯৮ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজার ছাড়িয়েছে

প্রকাশিত: জুলাই ১১, ২০২০

  • শেয়ার করুন

গত ২৪ ঘন্টায় খুলনা মেডিকেল কলেজের (খুমেক) পিসিআর ল্যাবে ১১০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। যার মধ্যে ৯৮ জনই খুলনার। এছাড়াও বাগেরহাটের ৪ জন, যশোরে ৩ জন, নড়াইলে ২ জন এবং বরিশাল, বগুড়া ও ঢাকায় একজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজন ও উপসর্গ নিয়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। মারা যাওয়া দু’জনের বাড়ি খুলনায়, দু’জনের বাড়ি বাগেরহাট ও একজনের বাড়ি সাতক্ষীরায়। মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৪৪ জন। মোট রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৩০৩৫ জন। এর ফলে শনাক্তের সংখ্যা তিন হাজার ছাড়িয়েছে।শনাক্তদের মধ্যে নারীদের তুলনায় পুরুষের সংখ্যাই বেশি। আর মোট আক্রান্তদের মধ্যে মাত্র ১ শতাংশ আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার (১১ জুলাই) ভোর ৫টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা সাসফেক্টেড ফ্লু কর্নার ও করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে এ পাঁচজনের মৃত্যু হয়।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বিকেল সাড়ে ৪টায় করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে বাদশা (২৭) নামে এক যুবক মারা যান। তিনি বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার সাত বাড়িয়া গ্রামের মৃত ইয়াদ আলীর ছেলে। গত ৮ জুলাই রাত ৯টায় তিনি করোনা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পার্সন ডা. শেখ ফরিদ উদ্দীন আহমেদ তার মৃত্যুর তথ্য নিশ্চত করেছেন।

এদিকে ভোর ৫টায় খুলনা ডুমুরিয়া উপজেলার মিকশিমিল গ্রামের ফাতেমা (৫৫), সকাল পৌনে ৬টায় সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জের মন্দকাঠি গ্রামের মরিয়ম (৫০), পৌনে ৯টায় খুলনার খান জাহান আলী থানার মশিআলী এলাকার হালিমা বেগম (৭৮), বিকেল পৌনে ৪টায় বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার আকবাটি গ্রামের আব্দুস সালাম (৫০) করোনা উপসর্গ নিয়ে খুমেকের ফ্লু কর্নারে মারা যান।

ফ্লু কর্নারের ফোকাল পার্সন (আরএমও) ডা. মিজানুর রহমান তাদের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তারা করোনা আক্রান্ত ছিলেন কিনা পরীক্ষার পর তা জানা যাবে।

খুমেকের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান শনিবার পিসিআর ল্যাবে ২৮২ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল। এতে খুলনা নমুনা ছিল ২৪৩টি। মোট পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে ১১০ টি। যার মধ্যে ৯৮ জনই খুলনা জেলার। খুলনা ছাড়াও বাগেরহাটের ৪ জন, যশোরে ৩ জন, নড়াইলে ২ জন এবং বরিশাল, বগুড়া ও ঢাকায় একজনের।

খুলনা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. শেখ সাদিয়া মনোয়ারা ঊষা জানান, শনিবার সকাল পর্যন্ত খুলনায় করোনা শনাক্ত ছিলেন ২ হাজার ৯৩৭ জন। এদের মধ্যে সর্বাধিক ২৩’শ ৭০ জন রোগী খুলনা মহানগরীর। এছাড়া দাকোপে ৫৯ জন, বটিয়াঘাটায় ২৯, রূপসায় ১১৭ জন, তেরখাদায় ৩৪ জন, দিঘলিয়ায় ৭০ জন, ফুলতলায় ১৩৩ জন, ডুমুরিয়ায় ৬৩ জন, পাইকগাছায় ৪৬ জন ও কয়রায় ১৬ জন রোগী রয়েছেন। তিনি আরও জানান, খুলনায় মোট আক্রান্তের ১ হাজার ৯২৭ জন পুরুষ, ৮৫৬ জন মহিলা ও ১৫৪ জন শিশু। অর্থাৎ মোট শনাক্তের ৬৬ শতাংশ পুরুষ, ২৯ শতাংশ নারী ও ৫ শতাংশ শিশু। আজ ৮৮ তম দিনে মোট রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৩০৩৫ জন।এর ফলে শনাক্তের সংখ্যা তিন হাজার ছাড়িয়েছে। এবং শনাক্তের হার ২৯,৯৫%।

উল্লেখ্য, খুলনায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় ১৩ এপ্রিল। নগরীর করিমনগর এলাকার অবসর প্রাপ্ত ব্যাংকার আজিজুর রহমান।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • শেয়ার করুন